‘তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়েছে’, বলল রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভি

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ঘোষণা করেছে যে ইউক্রেন যুদ্ধে রুশ যুদ্ধজাহাজ মস্কোভা ডুবে যাওয়ার পর ইতোমধ্যেই তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়েছে। যদিও রাশিয়া এর আগে দাবি করেছিল, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ডুবে গেছে যুদ্ধজাহাজ মস্কোভা। তবে ইউক্রেন দাবি করেছে, রুশ যুদ্ধজাহাজটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে কৃষ্ণসাগরে ডুবিয়ে দেওয়ার কৃতিত্ব তাদের।

যুদ্ধজাহাজটি ডুবে যাওয়ার ফলে ক্রেমলিনের প্রধান প্রচারণা মুখপত্র রাশিয়া ওয়ান ভিন্ন তথ্য দিচ্ছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলটির উপস্থাপক ওলগা স্কাবেয়েভা দর্শকদের জানিয়েছেন, পরিস্থিতি যা দাঁড়িয়েছে তাকে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বলা যেতে পারে। তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, তিনি সম্পূর্ণরূপে এ ব্যাপারে নিশ্চিত।

তিনি আরো বলেছেন, সরাসরি ন্যাটো না হলেও এখন আমরা অবশ্যই ন্যাটোর অবকাঠামোর বিরুদ্ধে লড়াই করছি।

ওই অনুষ্ঠানের একজন অতিথি মস্কোভা ডুবে যাওয়াকে রাশিয়ার মাটিতে আক্রমণের সঙ্গে তুলনা করেছেন। যদিও ক্রেমলিন জোর দিয়ে বলেছে যে আগুনের কারণে তাদের শক্তিশালী যুদ্ধজাহাজটি ডুবে গেছে।

লোকটিকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে, এটিকে যুদ্ধ বলার পরিবর্তে ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের জন্য সরকার অনুমোদিত বাক্যাংশ ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ ব্যবহার করতে হবে।

ওই অনুষ্ঠানের ভিডিওটি বিশ্বজুড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ছে। একজন টুইটার ব্যবহারকারীর মন্তব্য, তারা ভালুককে খোঁচা দিচ্ছে, কিন্তু এ ক্ষেত্রে ন্যাটো ভালুক।

টুইটারের আরেক ব্যবহারকারী লিখেছেন, তারা ৫০০ ট্যাংক হারিয়েছে, দুই হাজার গাড়ি হারিয়েছে, ৮২টি বিমান এবং ১৮ হাজারের বেশি সৈন্য হারিয়েছে। ন্যাটো এখন পর্যন্ত সেখানে যায়ওনি। এটা বলা ঠিক যে ন্যাটোর বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ রাশিয়ার জন্য ভালো যাচ্ছে না।
সূত্র : এনডিটিভি।

About bdnews

Leave a Reply

Your email address will not be published.